সোনাগাজীতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের বিক্ষোভ

প্রতিনিধি | জাতীয়

রবিবার ২৩ এপ্রিল ২০১৭|০৮:২৩:৫৭ মি.

ফেনীর সোনাগাজীতে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে রোববার সকালে সোনাগাজীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানরা বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। সকাল ১০টার দিকে একটি বিক্ষোভ মিছিল সোনাগাজী বাজারের প্রধান প্রধান সড়কগুলো প্রদক্ষিণ শেষে জিরো পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে মানববন্ধন শেষে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সৈয়দ নাছির উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও পৌর স্বেচ্ছােসেবক লীগের সভাপতি নুরুল করিম সাইফুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সোনাগাজী উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ও পৌরসভার মেয়র এডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন। আরো বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোশাররফ হোসেন, সাবেক ফেনী জেলা সহকারি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল কালাম মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সামছুল হুদা ও ইউনিয়ন কমান্ডার আবুল কাশেম কাজী প্রমূখ। এছড়াও সংসদ কমান্ডার ও ইউনিয়ন কমান্ডার সহ চার শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা এবং বিপুল সংখ্যক মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানরা উপস্থিত ছিলেন।
এসময় বক্তারা বলেন, জঙ্গি ও জামায়াতের অর্থ যোগানদাতা ইতালি প্রবাসী গোলাম কিবরিয়া বাবুল সরকার ও মুক্তিযোদ্ধাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য ফেনীর আদালতে মিথ্যা, হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দায়ের করেছেন। অনতি বিলম্বে তারা এ মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। তারা আরো দাবি করেন, ১৯৭১সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের পর মুক্তিযোদ্ধারা ও সাধারন মানুষ যখন স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহন করছিল তখন বাদির ভাই মরহুম নুরুল আফছার গণডাকাতি, গণধর্ষণ ও লুটতরাজ শুরু করে। এমনকি রাজাকারদের সাথে নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যার উদ্দেশে সোনাগাজী থানায় হামলা করে এলোপাতাড়ি ব্রাশ ফায়ার শুরু করে। তার নিজের ছোড়া গুলিতেই নুরুল আফছার থানার মধ্যে নিহত হয়। আফছার উগ্রবাদি ও নকশাল পন্থি মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পর মুক্তিযোদ্ধাদের গায়ে কালিমা লেপন করতে মিথ্যা, হয়রানি ও মানহানিকর মামলা দায়ের করেছেন তার ভাই বাবুল। বক্তারা আরো বলেন, বাবুল বিদেশ থেকে জঙ্গি ও জামাতের অর্থ যোগানদাতা। তার এক ভাই মরহুম আবদুল মান্নান ছিলেন জামায়াতের একজন সক্রিয় কর্মী। জীবদ্দশায় তিনি প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে জিমায়াত-বিএনপি প্যানেলে নির্বাচন করেছিলেন। তারা কখনো মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোক হতে পারেনা। সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, হয়রানি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দায়ের করেছেন বাবুল। তারা আরো বলেন, তৎকালীণ সময়ে মরহুম নুরুল আফছারের পিতা মৌলভী আহম্মদ করিম বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন কিন্তু মামলাটি প্রমাণ করতে না পারায় তিনি তৎকালীণ সময়ে প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন। দীর্ঘ ৪৬ বছর পর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করায় মুক্তিযোদ্ধারা বিস্মিত হয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরকারী বাবুলের ব্যাংক হিসাব জব্দ করার দাবি করেন তারা। এসময় মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার না করলে সোনাগাজীর মুক্তিযোদ্ধারা কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুমকি দেন।
প্রসঙ্গত; গত ১৩এপ্রিল ফেনীর সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মুরহুম মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আফছারের ভাই গোলাম কিবরিয়া বাবুল বাদি হয়ে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সৈয়দ নাছির উদ্দিন, তার ভাই শাহাজাহান আকবর, সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোশাররফ হোসেন, সোনাগাজী সদর ইউনিয়ন কমান্ডার আবুল কাসেম কাজীকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। ১৯৭১ সালের ৫ ডিসেম্বের সোনাগাজী থানায় গুলিবিদ্ধ হয়ে বাদির ভাই মুক্তিযোদ্ধা নুরুল আফছার মারা যান।

পাঠকের মন্তব্য Login Registration