দিনাজপুরের খানসামার গোয়ালডিহি ইউনিয়নে পূর্ব শত্রুতা জেরে এসিড নিক্ষেপ

প্রতিনিধি | সারাদেশ

সোমবার ১০ এপ্রিল ২০১৭|১২:০৪:৫৪ মি.

খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের খানসামায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে জমির (৪২) কসাই নামের এক ব্যক্তির শরীরে এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, গত ৫ এপ্রিল রাত আনুমানিক ১১.৩০ ঘটিকার দিকে জমির উদ্দীন স্থানীয় পুলের হাট থেকে মোটরবাইকে করে বাড়ী ফিরে। বাড়ীর পথে গোয়ালডিহি ডারার পার স্থানে ৭ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি তার গতিরোধ করে। জমির তাদের হাতে বোতল এবং চায়ের কাপ দেখতে পায়। চায়ের কাপে পানির মতো কিছু ঢেলে তার দিকে ছুড়ে মারলে সে মোটরবাইক ফেলে নিজের মুখমন্ডল সহ মাথা নিচু করে। সে বুঝতে পারে যে এ্যাসিডের মতো কোন কিছু তাকে মারা হচ্ছে। অতপর সে মেঠো পথে পড়ে যায় এবং শত্রুরা তার দিকে এ্যাসিড নিক্ষেপ করে। এতে তার শরীরের পিছন পাশ সহ ডান গাল ঝলসে যায়। এ্যাসিড নিক্ষেপের পর সে জোরে চিৎকার দেয়। ঠিক ঐ সময় দুটি ব্যাটারী চালিত ভ্যান অপর দিক থেকে ভ্যানের লাইট জ্বালিয়ে আসতে থাকে। চলন্ত ভ্যান দুটিকে দেখে শত্রুরা রাস্তার পাশে ভুট্টা ক্ষেতে ঢুকে পড়ে এবং পালিয়ে যায়। তার মধ্যে একটি ভ্যানের ভ্যান চালক একামুল জমিরকে চিনতে পারে এবং জোরে চিৎকার করতে থাকলে আশ- পাশের বাড়ীর লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে হাজির হয়। সবাই ধরাধরি করে জমিরকে দ্রততার সাথে নিকটস্থ খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাকেরহাটে নিয়ে যায়। কিন্তু অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক জমিরকে দ্রুত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে জমিরের ছেলে হারুন রাতেই এ্যাম্বুলেন্সে করে তার পিতাকে রংপুরে নিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন জমিরের অবস্থা আশংকাজনক। তার পিঠের বেশীর ভাগ,কোমড়ের নিচের অংশ এবং ডান গাল বেশীর এ্যাসিডে ঝলসে যায়। এখানে আরো উল্লেখ্য যে, প্রায় এক/ দেড় মাস পূর্বে উক্ত জমিরে ৫ কাঠা জমির কাঁচা গম শত্রুতা বশত: কে বা কাহারা কেটে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে জমির স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কিংবা থানায় কোন অভিযোগ দাখিল করে নাই। প্রতিবেশীর বরাতে জানা যায়, ৬ নং গোয়ালডিহি ইউনিয়ন পরিষদের অন্তগর্ত গোয়ালডিহি গ্রামের শিয়ালডাঙ্গায় জমিরের বাড়ী। বিবাহিত জীবনে জমিরের দুই ছেলে ও এক মেয়ে। সে উক্ত ইউনিয়নের কালির বাজারে কসাইগিরি করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক প্রতিবেশী জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে জমিরকে এ্যাসিড নিক্ষেপ হতে পারে। পরিবারের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করে জানা যায়, এ্যাসিড দগ্ধ জমিরের চিকিৎসার জন্য ব্যস্ত থাকায় এখনো পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ দাখিল করা হয়নি।

 

পাঠকের মন্তব্য Login Registration