মাশরাফি বিন মুর্তজা বললেন দুই দলই সমান অবস্থায়

প্রতিনিধি | খেলাধুলা

শনিবার ২৫ মার্চ ২০১৭|০৮:২৭:৪২ মি.

 

টেস্ট সিরিজ নিয়ে আশাটা কম ছিল। কলম্বো টেস্ট জিতে বাংলাদেশ দল চমকে দিয়েছে তাতেই। ডাম্বুলায় আজ থেকে শুরু ওয়ানডে সিরিজে বাড়তি শক্তি হবে সেই আত্মবিশ্বাস। বাংলাদেশ সিরিজ শুরু করছে শ্রীলঙ্কার সমান্তরালে থেকে। সিরিজ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে কাল বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বললেন সে কথাই—
দ্বিতীয় টেস্টের জয় ওয়ানডেতে কতটা অনুপ্রাণিত করবে?
মাশরাফি বিন মুর্তজা: যদি আমাদের ওয়ানডে দলটার দিকে তাকান, আমাদের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই টেস্ট খেলছে। ওয়ানডেতে অবশ্যই এটা সাহায্য করবে। টানা দুই-তিন মাস ধরে আমরা শুধু টেস্ট খেলেছি। কোনো ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি খেলিনি। এবার একেবারে ভিন্ন খেলা। লাল বল থেকে সাদা বলের খেলা। প্রথম ম্যাচে আমাদের অনেক সতর্ক থাকতে হবে। পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে হবে।
 র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ এখন সাতে। বিশ্বকাপে খেলার ব্যাপারটা মাথায় থাকবে কি না?
মাশরাফি: এটা সব সময়ই মাথায় থাকে। তবে শুধু ২০১৯ বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবলে খেলোয়াড়দের জন্য চাপ হয়ে যাবে। যেভাবে খেলছে সেটি সবাই উপভোগ করেছে, এটাই সবচেয়ে বেশি জরুরি। এখানেও তারা একইভাবে উপভোগ করবে। বড় বিষয় হচ্ছে, আমরা দেশের বাইরে খেলছি। গত বছরও আমরা সব ওয়ানডে খেলেছি দেশের মাটিতে। নিউজিল্যান্ডে সর্বশেষ যে তিনটি ওয়ানডে খেলেছি প্রতিটিতে হেরেছি। এটা আমাদের জন্য অন্য রকম চ্যালেঞ্জ। আশা করি, উতরে যেতে পারব।
বেশির ভাগ ব্যাটসম্যান ভালো ছন্দে আছেন। একাদশ বাছাইটা কি মধুর সমস্যা হয়ে গেল?
মাশরাফি: সেটা হলে তো ভালো লক্ষণ। আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো করছে। যদি ওয়ানডেতে জিততে চান তবে আপনাকে ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং প্রতিটি বিভাগেই ভালো করতে হবে। টেস্টে সবাই ভালো ব্যাটিং করেছে, কিন্তু সেঞ্চুরি পেয়েছে শুধু সাকিব। আমরা এ নিয়ে ভাবছি। ওয়ানডেতে একজনই ম্যাচ বদলে দিতে পারে। শ্রীলঙ্কা দলে ভালো বোলার আছে, বিশেষ করে ওয়ানডেতে। ব্যাটিং-বোলিং দুটিতেই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।
জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ?
মাশরাফি: প্রতিটি ম্যাচই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। নিউজিল্যান্ডে আমরা শুরুর দিকে ভালো খেললেও শেষটা ভালো করতে পারিনি। মিরাজ দলে যোগ দিয়েছে। দলে বৈচিত্র্য আছে। প্রতিপক্ষের দিকে তাকিয়ে সম্ভাব্য সেরা একাদশ গড়ার চেষ্টা করব।
 এই মাঠে ২০১০ এশিয়া কাপটা ভালো যায়নি। এবার সুখস্মৃতি নিয়ে ফিরতে পারবেন?
মাশরাফি: সেবার বাজে খেলেছি। সবাই ভালো খেলতে চায়। আমাদের চেষ্টা থাকবে প্রথম থেকে সেরাটা দিতে। পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে। সেটা না হলে আমরা যেন লড়তে পারি। অনেক সময় খেলা বদলে যায়, ওই গতিটা থাকতে হবে। আমি মনে করি এই দলের সে সামর্থ্য আছে। আশা করি, ভালো খেলতে পারব।
ইকেট কেমন দেখলেন?
মাশরাফি: এখানে অনেক আগে খেলেছি। বলা কঠিন। তবে উইকেট দেখে ভালো মনে হচ্ছে। পরের দিকে টার্ন করবে কি না, অনুমান করা কঠিন। যেকোনো কিছুর জন্যই মানসিক প্রস্তুতি থাকতে হবে। দেখে মনে হচ্ছে ভালো, ব্যাটিং উইকেট হবে। দ্বিতীয় ইনিংসে কী হবে বলা কঠিন। প্রথম ইনিংসে সিমিং উইকেট হবে কি না, তা-ও বলা যাচ্ছে না।
 র‍্যাঙ্কিংয়ের ওঠা-নামা নিয়ে কতটা ভাবছেন?
মাশরাফি: ওটা ভাবলে চাপ হয়ে যাবে। স্বাভাবিক খেলাটাই কঠিন হয়ে যাবে তখন। যেসব ম্যাচ জিতে সাতে এসেছি, তখন তো এসব নিয়ে ভাবিনি।
মিরাজের অভিষেক হবে কাল?
মাশরাফি: এটা এখন বলা যাচ্ছে না।
 ওয়ানডে সিরিজ জেতার লক্ষ্য
মাশরাফি: যদি ওদের টেস্ট ও ওয়ানডে স্কোয়াড দেখেন, ওয়ানডেতে ওরা আরও অভিজ্ঞ। কাজটা এতটা সহজ হবে না। ওদের দুর্দান্ত কিছু খেলোয়াড় আছে। ওয়ানডেতে ছোট একটা ইনিংস ম্যাচ বদলে দিতে পারে। খুব সজাগ থাকতে হবে আমাদের। আমাদের সেরাটাই চেষ্টা করতে হবে। কী হবে বলতে পারছি না। তবে পরিকল্পনা থাকবে প্রথম থেকেই ভালো কিছু করা।
 ওয়ানডে সিরিজে কি বাংলাদেশকে এগিয়ে রাখবেন?
মাশরাফি: এগিয়ে বা পিছিয়ে থাকি, আমাকে সেরাটাই দিতে হবে। প্রতিপক্ষই যে-ই থাকুক। অনেক সময় টেস্টে ১০০ করেও ম্যাচ বাঁচানো যায় না। নিউজিল্যান্ডে যেমন সাকিব ২০০ করেও ম্যাচ বাঁচাতে পারেনি। কিন্তু ওয়ানডেতে দুই-তিনজন ৬০-৭০ রান করেই ম্যাচ জিতিয়ে দিতে পারে। আমরা বেশির ভাগ ওয়ানডে জিতেছি নিজেদের মাঠে। নিউজিল্যান্ডে চ্যালেঞ্জটা শুরু হয়েছে। সেখানে সুযোগ তৈরি করেও পারিনি। এবার ভালো শুরু হলে সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি না করার চেষ্টা করব। সিরিজটা দুই দলই সমান অবস্থা থেকে শুরু করছি।

পাঠকের মন্তব্য Login Registration